বুধবার, ০৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ১১:৫৫ অপরাহ্ন
শিরোনামঃ
শিরোনামঃ
ঈশ্বরদীতে অবৈধ দখলদারদের বিরুদ্ধে রেলের অভিযান একদিন পর রূপপুর রেলস্টেশন উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী পেরিয়ে গেছে ৭১ বছর-এখনো রয়ে গেছে খাজা নাজিম উদ্দিনের নাম রুপপুর বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ে বার্ষিক ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত ঈশ্বরদীতে তিনদিনব্যাপী নিটল-নিলয় এক্সপ্রেস টাটা গাড়ির মেলার উদ্বোধন পৃথক অভিযানে ১৮২৯ পিচ ইয়াবা সহ বিপুল পরিমাণ গাঁজা উদ্ধার গ্রেফতার ৩ বেলায়েত খান উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক-সভাপতির বিরুদ্ধে নিয়োগ বানিজ্য ও অর্থ আত্মসাৎ এর অভিযোগ রাজশাহীর জনসভায় প্রধানমন্ত্রীর সাথে রেজাউল রহিম লালের সৌজন্য সাক্ষাত ঈশ্বরদীতে একদিনে ৭ দোকানে দুর্ধর্ষ চুরি ঈশ্বরদীতে শেখ কামাল আন্ত:স্কুল ও মাদ্রাসা অ্যাথলেটিকস প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত

ঈশ্বরদীর দাশুড়িয়ায় মামলাধীন জমি জাল দলিলে বিক্রয় চেষ্টার অভিযোগ

ঈশ্বরদী, পাবনা প্রতিনিধি / ১৭৩ বার পঠিত
আপডেট : রবিবার, ২২ জানুয়ারি, ২০২৩, ৪:০২ অপরাহ্ণ

পাবনার ঈশ্বরদী উপজেলার দাশুড়িয়ায় মামলাধীন কোটি টাকা মূল্যের একটি জমি জাল দলিলের মাধ্যমে বিক্রয় চেষ্টার অভিযোগ উঠেছে। দাশুড়িয়া নওদাপাড়া গ্রামের মৃত আমসের দেওয়ানের ছেলে আলতাফ দেওয়ান দাশুড়িয়া ট্রাফিক মোড় সংলগ্ন ঐ জমিটি জাল দলিল করে বেশ কিছু দিন যাবৎ তা বিক্রির চেষ্টা করছে বলে অভিযোগ করেছেন তার আপন ভাই মাহবুব দেওয়ান। জমিটির ওপর মামলা রয়েছে বলেও তিনি জানান।

মাহববুব দেওয়ান বলেন, তিনি নাবালক থাকা অবস্থায় তাদের বড় ভাই আলতাফ হোসেন দেওয়ান ৩শতক জমি ক্রয় করার নামে হেবা দলিলে ১৯ শতক জমি রেজিস্টারি করে নেন। ২০২১ সালে রেকর্ড সংক্রান্ত ভুল সমাধান ও জাল দলিল বাতিলের জন্য পাবনা জেলা সিনিয়র সহকারী জজ আদালতে নিজে বাদী হয়ে অভিযোগ করেন তিনি। মামলা টি আমলে নিয়ে আদালত বিচারকার্য পরিচালনা করছেন। যার মামলা নং পাবনা মোকদ্দমা নং ও.সি – ১৬২৯ /২০২১।

মামলার নথি অনুযায়ী, উল্লেখিত জমির দাশুড়িয়া মৌজার (ক) জে.এল নং ৫৭,এস.এ খতিয়ান নং ৩৩৩,দাগ নং ৫৫। আর.এস খতিয়ান নং ২০৩,দাগ নং ৪৫ (খ)এস.এ খতিয়ান নং ৩২৬,দাগ নং ৬১।আর.এস খতিয়ান নং ১৪৪,দাগ নং ৪৯ (গ)এস.এ খতিয়ান নং ৩২৭, দাগ নং ৬৫।আর.এস খতিয়ান নং ১৪৩,দাগ নং ৫৩ (ঘ) এস.এ খতিয়ান নং ২১৫,দাগ নং ৭৯। আর.এস খতিয়ান নং ১৫১, দাগ নং ৭৭। সর্ব সাকুল্যে বাদীর জমির পরিমান .১৯২৭ ১/২।

মাহবুব দেওয়ানের ও তার অন্যান্য ভাইদের বক্তব্য অনুযায়ী, স্থানীয় একটি সঙ্গবদ্ধ চিহ্নিত দালাল চক্রের যোগসাজশে দীর্ঘদিন ধরে উল্লেখিত জমির জাল দলিল করে বিক্রয়ের অপচেষ্টা করে আসছে। এই জাল দলিলের বিরুদ্ধে মামলা চলমান থাকার পরও সে কিভাবে জমি বিক্রির অপচেষ্টা করছে তার বিরুদ্ধ আইনগত ব্যবস্থা গ্রহনের কথাও জানান তারা।

তারা আরও বলেন, আলতাফ দেওয়ান অনেকদিন আগেই তার সমস্ত সম্পত্তি বিক্রি করে এলাকা ছেড়ে দেউলিয়া হয়েছেন। তিনকন্যার মা কে তালাক দিয়ে পরে আবার বিবাহ করেছেন। এই দ্বিতীয় পক্ষই তাকে এসব কুবুদ্ধি দিয়েছেন।অনেকেই না বুঝে এই জমি কিনতে অনেকেই আসেন, কিন্তু জমির উপর মামলা চলমান শুনে ও অন্যান্য ভাইদের প্রতিরোধে চলে যান।

এ বিষয়ে আলতাফ দেওয়ান বলেন, উল্লেখিত সম্পতি আমাদের পৈত্তিক সম্পত্তি না। আমার ক্রয়কৃত সম্পত্তি আমি আমার ভাইদের নামে দিয়েছিলাম। পরে তারা আবার বিক্রয় করার সুবাদে আমি নিজের নামে ক্রয় করি। আমার ভাইয়েরা জাল দলিলের কথা বলে আদালতে আমার বিরুদ্ধে মামলা করেছে। তবে তা গত সপ্তাহে প্রত্যাহার হয়েছে বলে শুনেছি। এসময় আদালতের মামলা প্রত্যাহার সংক্রান্ত কাগজপত্র দেখতে চাইলে তিনি তা দেখাতে অপারগতা প্রকাশ করেন।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরও খবর

ফেসবুকে আমরা

এক ক্লিকে বিভাগের খবর
Bengali Bengali English English Russian Russian
error: Content is protected !!
Bengali Bengali English English Russian Russian
error: Content is protected !!