রবিবার, ১৪ এপ্রিল ২০২৪, ০৪:৩৬ পূর্বাহ্ন
শিরোনামঃ
শিরোনামঃ
রায়পুর মানব কল্যাণ সংস্থার  ইফতার ও ঈদ সামগ্রী বিতরণ কার্যক্রম অনুষ্ঠিত  জীবনের জয়গান মানব কল্যান সংস্থার উদ্যোগে ঈদ উপহার বিতরণ ক্লাব আইজিয়ান এর উদ্যোগে ইফতার মহফিল অনুষ্ঠিত  আওয়ামীলীগ হত্যায় উৎসাহী দল– ঈশ্বরদীতে রুহুল কবির রিজভী  ঈদ উপলক্ষে ঈশ্বরদী থানা পুলিশের বিশেষ মহড়া  ঈশ্বরদীতে শিক্ষার্থীকে কুপ্রস্তাব দেওয়ার অভিযোগ যুব উন্নয়ন কর্মকর্তার বিরুদ্ধে মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে লড়তে চান মরিয়ম বেগম ।। বুবুর চোখে জল।। বিয়ের প্রলোভনে ধর্ষণ, প্রেমিক সেলিম কে গ্রেপ্তার করেছে র‌্যাব ২০৪১ সালের আগেই পাবনা স্মার্ট জেলা হিসেবে স্বীকৃতি পাবে- রাজশাহী বিভাগীয় কমিশনার 

উপজেলা নির্বাচন ঘিরে ঈশ্বরদীর রাজনীতির মাঠ এখন সরগরম 

ঈশ্বরদী, পাবনা প্রতিনিধি / ২৩৯ বার পঠিত
আপডেট : রবিবার, ১৮ ফেব্রুয়ারি, ২০২৪, ২:২৫ অপরাহ্ণ

জাতীয় সংসদ নির্বাচনের রেশ কাটতে না কাটতেই উপজেলা পরিষদের নির্বাচন নিয়ে পাবনার ঈশ্বরদীতে রাজনীতির মাঠ বেশ সরগরম হয়ে উঠেছে। এখনো নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা না হলেও কদ হবেন চেয়ারম্যান প্রার্থী? কারা হবেন ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী? কেমনই বা হবে তাদের নির্বাচনী প্যানেল? এমন প্রশ্ন এখন সর্বত্র। তবে নির্বাচনকে অংশগ্রহণ ও প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ করতে সংসদ নির্বাচনের মত ক্ষমতাসীন আঃলীগ কাউকে দলীয়ভাবে প্রার্থী করবে না এমন খবর পাওয়ার পরই স্থানীয় রাজনৈতিক উত্তাপ বেড়েছ কয়েকগুণ।

২০১৯ সালের মার্চ মাসে (২য় ধাপে) অনুষ্ঠিত হয়েছিলো ঈশ্বরদী উপজেলা নির্বাচন। এ বছরও এ উপজেলার মে মাসের শেষের দিকে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হতে পারে বলে ইঙ্গিত দিয়েছে নির্বাচন কমিশন।

গত ২০১৯ সালের ১৮ই মার্চ দ্বিতীয় ধাপের উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছিলো আঃলীগ মনোনীত প্রার্থী নুরুজ্জামান বিশ্বাস। ভাইস চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছিলেন আব্দুস সালাম খান ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন আতিয়া ফেরদৌস কাকলি । পরে সাবেক ভূমি মন্ত্রী ও তৎকালীন এমপি শামসুর রহমান শরীফ ডিলু’র ইন্তেকালের পর ২০২০ সালের ২৬ শে সেপ্টেম্বর নূরুজ্জামান বিশ্বাস উপ নির্বাচনে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হওয়ায় চেয়ারম্যান পদটি শূন্য হয়। ২০২০ সালের ১০ই ডিসেম্বর উপজেলা চেয়ারম্যানের শূন্য পদে অনুষ্ঠিত উপ নির্বাচনে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন আঃলীগ সমর্থিত প্রার্থী উপজেলা আঃলীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব নায়েব আলী বিশ্বাস। ২০২৪ সালের ২০ জানুয়ারি নায়েব আলী বিশ্বাস মারা যাওয়ায় উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান পদটি আবারও শূন্য হয়। পরে উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান (প্যানেল চেয়ারম্যান) আব্দুস সালাম খানকে ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যানের দায়িত্ব দেওয়া হয়। বর্তমানে ভারপ্রাপ্ত  চেয়ারম্যান পদে অধিষ্ঠিত আছেন আব্দুস সালাম খান এবং মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান হিসেবে আতিয়া ফেরদৌস কাকলি দায়িত্ব পালন করছেন।

সংসদ নির্বাচনের মত স্থানীয় নির্বাচন নিয়ে বিএনপির নেতা-কর্মীরা চুপচাপ থাকলেও ক্ষমতাসীন আঃ লীগ নেতা-কর্মীদের মধ্যে আলোচনার ঝড় বয়ে যাচ্ছে। মাঠে ময়দানে আলোচনা থেকে যাদের সম্ভাব্য নাম পাওয়া যায়, তাতে দেখা যাচ্ছে উপজেলা চেয়ারম্যান পদে লড়াইয়ে অবতীর্ণ হচ্ছেন, উপজেলা আঃলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও উপজেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান মোখলেছুর রহমান মিন্টু, উপজেলা আঃলীগের সাধারণ সম্পাদক ও সাবেক মেয়র আবুল কালাম আজাদ মিন্টু, বর্তমান ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান আব্দুস সালাম খান, উপজেলা আঃ লীগের সদস্য ও সাঁড়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান এমদাদুল হক রানা সরদার, পৌর যুবলীগের সভাপতি আলাউদ্দিন বিপ্লব।

পুরুষ ভাইস চেয়ারম্যান পদে পাবনা জেলা পরিষদের সাবেক সদস্য ছাইফুল আলম বাবু মণ্ডল,   ঈশ্বরদী পৌর যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক আরিফুল ইসলাম লিটন, মুক্তিযোদ্ধা সন্তান কমান্ড ঈশ্বরদী উপজেলা কমিটির আহবায়ক আব্দুর রহমান মিলন ও ঈশ্বরদী উপজেলা রাজমিস্ত্রী ও রডমিন্ত্রী শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল বারী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবেন। মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে পাবনা জেলা আঃলীগের মহিলা বিষয়ক সম্পাদক মাহজেবিন শিরিন পিয়া,  বর্তমান ভাইস চেয়ারম্যান ও উপজেলা আঃলীগের মহিলা মহিলা বিষয়ক সম্পাদক আতিয়া ফেরদৌস কাকলি, পৌর মহিলা আওয়ামী লীগের সভাপতি সাবিনা ইয়াসমিন, মহিলা আওয়ামী লীগ নেত্রী পারভিন আক্তার, উপজেলা যুব মহিলা লীগের সাধারণ সম্পাদক সোহানা পারভীন রুনা সহ বেশ কয়েকজনের গুঞ্জন শোনা যাচ্ছে।

উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান প্রার্থী মোখলেছুর রহমান মিন্টু বলেন, আমি ঈশ্বরদী উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যানের দায়িত্বপালনকালে রাজশাহী বিভাগের শ্রেষ্ঠ চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছিলাম। দীর্ঘদিন উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্বও পালন করেছি।  জনগণের চাওয়া পূরণ করতে আবারো উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে প্রার্থী হবো। যেহেতু এবারের নির্বাচনে দলীয় কোন প্রার্থী নেই। সুতরাং প্রার্থী যেই হোক তাকে  তৃনমূলে গ্রহণযোগ্যতার ভিত্তিতে বিজয়ী হতে হবে।

সাবেক মেয়র ও ঈশ্বরদী উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আবুল কালাম আজাদ মিন্টু বলেন, ছাত্রলী,  যুবলীগ করে আওয়ামীলীগের নেতৃত্বে এসেছি।  দলের সঙ্গে আমি কখনো বেইমানি করিনি। জনগণের ভোটেই ঈশ্বরদী পৌরসভার মেয়র নির্বাচিত হয়েছিলাম। সেই জনগণের চাওয়াতেই এবার উপজেলা চেয়ারম্যান হিসেবে নির্বাচন করতে চাই । উপজেলা পরিষদের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান আব্দুস সালাম খান বলেন, তৃণমূলের রাজনীতি থেকে উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান হিসেবে নির্বাচিত হয়েছিলাম। বর্তমানে ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যানের দায়িত্ব পালন করছি। আগামী নির্বাচনের চেয়ারম্যান হিসেবে নির্বাচিত হয়ে অসম্পূর্ণ কাজ সম্পন্ন করতে চাই।

একদিকে যেমন দলীয় প্রার্থী না থাকায় এবারের নির্বাচনে ব্যক্তি জনপ্রিয়তাকে কাজে লাগিয়ে প্রার্থীদের বিজয়ী হতে হবে বলে ধারনা করছে সাধারন ভোটাররা। অন্যদিকে ভয়ভীতি কিংবা রাজনৈতিক চাপে ভোটের মাঠ থেকে কেউই সরে দাড়াবেন না বলে জানিয়েছেন প্রার্থীরা।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরও খবর

ফেসবুকে আমরা

এক ক্লিকে বিভাগের খবর
Bengali Bengali English English Russian Russian
error: Content is protected !!
Bengali Bengali English English Russian Russian
error: Content is protected !!