সোমবার, ১৬ মে ২০২২, ০৬:২৬ অপরাহ্ন
শিরোনামঃ
শিরোনামঃ
ঈশ্বরদীতে বজ্রপাতে এক কৃষকের মৃত্যু ঈশ্বরদীর হতদরিদ্র পরিবারের মধ্যে ১৫টি সেলাই মেশিন বিতরণ করলেন কনক শরীফ ঈদগাঁও থানা পুলিশের অভিযানে ডজন মামলার আসামী বদি ডাকাত গ্রেফতার সড়ক দুর্ঘটনায় ঈশ্বরদীতে নিহত ২জন, আহত ২ ঈশ্বরদী বাসিকে পবিত্র ঈদ-উল ফিতরের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন তৌফিকুজ্জামান রতন মহলদার দোলন বিশ্বাসের পক্ষ থেকে ঈদ উল ফিতরের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন ছাত্রনেতা জয় মালিথা ঈশ্বরদীতে অসহায় ও ছিন্নমূল ৫ হাজার মানুষের মাঝে ঈদের পোষাক ও নগদ অর্থ বিতরণ করেন কনক শরীফ ঈশ্বরদীতে জীবনের জয়গান ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে সুধি সমাবেশ ও ঈদ উপহার বিতরণ ছাতকে অনলাইন প্রেসক্লাবের ইফতার মাহফিল অনুষ্ঠিত সলিমপুরে হিউম্যান এইড ওয়েলফেয়ার অর্গানাইজেশনের উদ্যোগে ঈদ পন্য সামগ্রী বিতরণ

সীমান্ত জনবাসীর দূর্দশার চিত্র বড়ই করুণ আর্তনাদ!

মোঃ মানিক মিয়া,কোম্পানিগঞ্জ,সিলেট / ১৫৪ বার পঠিত
আপডেট : শনিবার, ২৩ এপ্রিল, ২০২২, ৫:০৩ অপরাহ্ণ

সিলেটের সীমান্ত এলাকার পাথর কোয়ারী সচলের দাবী দীর্ঘদিন ধরে চলমান।লক্ষ লক্ষ শ্রমিক ও ব্যবসায়ীরা দুবছর যাবৎ আন্দোলন, স্বারকলিপি,মানববন্ধনে সরকারের দৃষ্টি আকর্ষণ করণে চেষ্টায় লিপ্ত ছিলেন। অনেক আন্দোলন সংগ্রামের ফসল হিসেবে মাননীয় সরকারের নির্দেশে কয়েকদফা সিলেটের জাফলং, বিছনাকান্দি, ভোলাগঞ্জ পাথর কোয়ারী পরিদর্শন শেষে অনেক জল্পনা কল্পনা শোনা গেছে। ২০২১ সালের শেষের দিকে বৃষ্টিবাদল দিনে প্রতিবেদক সরেজমিন প্রত্যক্ষদর্শী হিসেবে জানান কোয়ারী সচলের দাবী নিয়ে শ্রমিক ও ব্যবসায়ী সংশ্লিষ্টদের বরাতে বলা হয় শীঘ্রই উর্ধতন কতৃপক্ষ কোয়ারী সংক্রান্ত একটি বিধিমালা /সুপারিশ প্রনয়ণ দাখিল করবেন সরকারের উচ্চপর্যায়ে। কিন্তু দূর্ভাগ্যজনক সত্য আজ অবধি সুপারিশনামা দাখিল করলেও কার্যত ব্যবস্হা হচ্ছেনা। এতে শ্রমিক ব্যবসায়ী নেতৃবৃন্দ সিলেট ৪আসনের এম,পি, প্রবাসী কল্যান মন্ত্রী ইমরান আহমদের সহযোগিতার অভাবেই মূলত কোয়ারী সচলকরণের বিষয়টি মূখ থুবড়ে লাল ফিতায় বন্দী। এ থেকে উত্তরণের উপায় একমাত্র মন্ত্রী ইমরান আহমদকেই খুজতে হবে বলে মন্তব্য সংশ্লিষ্টদের।

সচিব নেতৃবৃন্দের সিলেটের সকল পাথর কোয়ারী পরিদর্শন শেষে চলমান বছরের জানুয়ারি মাসে মাননীয় প্রধান মন্ত্রী ও খনিজ সম্পদ মন্ত্রণালয় বরাবর সুপারিশ নামায় চমৎকার বাস্তবসম্মত সরকার ও জনগণের দিক বিবেচনা করে সময়োপযোগী কল্যানমূখী দীর্ঘ যুক্তিসম্মত প্রস্তাবনা পাঠানো হয়েছে। তন্মধ্যে গুরুত্বপূর্ণ দুটি দিক বন্ধ থাকা পাথর কোয়ারীতে শ্রমিকরা মাঝেমধ্যে কিছুটা পাথর তুলায় সরকার হারাচ্ছে রাজস্ব আয় অন্যদিকে লক্ষ শ্রমিকদের কর্মসংস্হানের দিক বিবেচনা করে যেসমস্ত কোয়ারী সচল বিবেচনায় আনা যায় সেখানে বিধিমালা অনুযায়ী সরকারী লিজ দিয়ে ম্যানুয়েল পদ্ধতিতে চালুর প্রক্রিয়া শুরু করা যেতে পারে তাতে সরকার বিপুল রাজস্ব আয় পাবে এতে টাস্ক ফোর্সের মাধ্যমে বিষয়টি নজরে রাখার সুপারিশ করা হয়েছে। অন্যদিকে যেসমস্ত কোয়ারী পরিবেশ বিবেচনায় আনা যাবেনা সেখানে বিগত দিনে পাথর উত্তোলনের ফলে বড় বড় গর্তগুলি ভরাট করে বনায়ন করার সুপারিশ করা হয়েছে। এ থেকে ধরা যায় কতৃপক্ষ চমৎকার বাস্তবতা সরকার ও জনগণের দিক বিবেচনা করে যুগোপযোগী পরামর্শমূলক প্রতিবেদন দাখিল করেছেন। কিন্তু দূর্ভাগ্যজনক সত্য যে কাংখিত আশ্বান্বিত সেইসব ফাইলগুলো চূড়ান্ত মন্ত্রীসভা দফতরে উঠছেনা। তার একমাত্র কারণ সিলেটবাসীরমূখে উচ্চারিত যে সিলেটের সকল পাথর কোয়ারী বন্ধ করার যে হীন ষড়যন্ত্র তথাকথিত বিদেশি পাথর আমদানি গ্রুপ যাকে শকুনের দৃষ্টি বলে আখ্যায়িত এটাই তার বাস্তব প্রমাণ।

বছর তিনেক ধরে সবকটি পাথর কোয়ারী হতে সরকারি নিষেধাজ্ঞায় পাথর উত্তোলন বন্ধ থাকায় কোম্পানীগঞ্জ, গোয়াইনঘাঠ ও জৈন্তার কয়েক লক্ষ শ্রমিক ও ব্যবসায়ী মানবেতর জীবনযাপন করছেন। সরেজমিনে লক্ষ্য করা গেছে শ্রমিক জনগোষ্ঠীর বন্ধ থাকা পরিত্যক্ত ষ্টোন ক্রাশারের আঙ্গিনার বালু মাটি খাবলে খাওয়ার চিত্র! গভীর রাত থেকে বেলছা কোদাল ঝাকি নিয়ে বালুর কণা আহরণ করার চিত্র দলবেঁধে যা শ্রমের তুলনায় নগন্য। একসময় এসব শ্রমিকের ঘরে অভাব ছিলনা আজ কর্মসংস্হান হারিয়ে মানবেতর জীবন অতিবাহিত করছেন। অন্যদিকে পাথর ব্যবসায় সংশ্লিষ্ট ব্যবসায়ীরা ব্যাংকের লোন ও ধারকর্জে চালিত ক্রাশার মিলসহ সকল পাথরসংশ্লিষ্ঠ পাথরের অভাবে বন্ধ হওয়ায় অনেকে ঋণের বুঝা নিয়ে দেউলিয়ার মতো হন্যে হয়ে ঘুরপাক খাচ্ছেন। এ থেকে উত্তরণের উপায় হিসেবে মাননীয় মন্ত্রী ইমরান আহমদের দৃষ্টি আকর্ষণ জরুরি ভিত্তিতে বলে মন্তব্য ব্যবসায়ীমহলের। লক্ষ করা গেছে পথে -ঘাঠে মাঠে -প্রান্তরে একই আওয়াজ বন্ধ থাকা পাথর কোয়ারী সচলের বিষয়ে সচিবপর্যায়ের সুপারিশমালার বাস্তবায়নে একমাত্র সিলেটের মাননীয় মন্ত্রী ইমরান আহমদ আন্তরিক ইচ্ছায়ই ফিরে পেতে পারে সিলেটের পাথর ব্যবসার পরিবেশ।

তাছাড়া সিলেটের সীমান্ত এলাকায় কর্মসংস্হান না থাকায় অনেকেই চুরি ডাকাতির প্রভাবে পড়েছে বলে মন্তব্য করছেন। উল্লেখ্য দীর্ঘদিন ধরে বন্ধ থাকা পাথর কোয়ারী সচলের দাবীর প্রেক্ষিতে মাননীয় সরকারের পক্ষ থেকে উচ্চ পর্যায়ের প্রতিনিধি দল সিলেটের পাথর কোয়ারী পরিদর্শন শেষে ২০২২ সালের জানুয়ারি মাসে সচলের বিষয়ে তথ্যবহুল সুপারিশনামা দাখিল করেন কতৃপক্ষের কাছে। কিন্তু দূর্ভাগ্যজনক সত্য যে অদৌ এ বিষয়ে কোন চূড়ান্ত ফায়সালা না দিয়ে কোন অশুভ শক্তি দ্বারা ফাইলটি লাল ফিতায় বন্দী। এহেন পরিস্থিতিতে নিরুপায় শ্রমিক ব্যবসায়ী তথা বৃহত্তর সিলেটবাসী হতবাক! সকল শ্রেণী পেশার জনসাধারণ কঠিন এই পরিস্থিতি থেকে উত্তরণের উপায় হিসেবে মাননীয় মন্ত্রী সীমান্ত জনপদের অভিভাবক ইমরান আহমদের হাতের ছোয়ায় পাথর কোয়ারী সচলের সুপারিশ নীতিমালা বন্দী ফাইল আলোর মূখ দেখবে এমনটাই প্রত্যাশা।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এ জাতীয় আরও খবর

ফেসবুকে আমরা

এক ক্লিকে বিভাগের খবর
Bengali Bengali English English Russian Russian
error: Content is protected !!
Bengali Bengali English English Russian Russian
error: Content is protected !!